বৃহস্পতিবার, ২৪ Jun ২০২১, ০২:৩৯ পূর্বাহ্ন

একুশের বাণী :
দৈনিক একুশের বাণী একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকা , আমরা দীর্ঘ ২০ বছর যাবৎ সুনামের সহিত দেশের প্রত্যেকটি প্রান্ত থেকে মুহুর্তের খবর এনে তুলে ধরি আপনাদের সামনে , বর্তমানে আমরা ২০১৮ থেকে অনলাইন বার্সনেও আছি , আগামী ১০ দিনের মধ্যে ই-পেপারেও চলে আসবো । আমাদের তথ্য দিয়ে সহযোগীতা করুন , সত্য-তা যত গভিরেই থাকুক , জাতির সামনে তুলে আনবো আমরা । আমাদের ইমেইল করতে পারেন এই ঠিকানায়ঃ- dailyekusherbani2013@gmail.com/dailyekusherbani2018@gmail.com ... মোবাইল বার্তা বিভাগঃ- 01635757744 গভ,রেজি নং- ডিএ-২০৩৫। বর্ষ-20
শিরোনাম :
নরসিংদীর পলাশে স্কুলের জমি দখল করে মন্দির স্থাপন শ্রীপুরে আওয়ামীলীগের ৭২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন প্যারাগুয়েকে হারিয়ে কোপার কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনা কাজিপুরে ইয়াবাসহ আটক দুইজন আর্থিক সহযোগিতা পেলে বাঁচবে ঠাকুরগাঁওয়ের শিশু জুনায়েদ গাজীপুরে লকডাউন প্রথম দিনই চলছে গাড়ী ঢিলেঢালা ভাবে!!!  গাজীপুরে বন বিভাগের জমি উদ্ধার করে মিশ্র বনায়ন বান্দরবানে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করায়,এক নওমুসলিমকে গুলি করে হত্যা করেছে স্বাধীনতার পরাজিত শক্তিরা ইসলামের নামে জঙ্গীবাদ সৃষ্টি করে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রাকে বন্ধ করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত – ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ইসলামপুরে মাদক ব্যবসায়ী মশু ইয়াবা সহ গ্রেফতার টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশের অভিযানে মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নরসিংদীর পলাশের দুটি ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী ও আওয়ামীলীগ বিজয়ী। কক্সবাজারে এক পরিবারেই ২০০ রোহিঙ্গা ! নোয়াখালীর চাটখিলে অস্ত্রসহ ১২ মামলার আসামী মধু গ্রেফতার। যশোর জেলা গোয়েন্দা শাখার একটি মাদক বিরোধী অভিযানে ফেনসিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ০৩। ময়মনসিংহ বিভাগে  সাংবাদিকদের নামে মামলা-হামলার সুষ্ঠু তদন্তের দাবীতে মানববন্ধন   তুরাগ নদী থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার সন্দ্বীপ অনলাইন প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে মাস্টার কে এম আজিজ উল্যাহ স্মরণে শোকসভা অনুষ্ঠিত মঙ্গলবার থেকে ৭ জেলায় কঠোর লকডাউন নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলায় পাঁচটি ভূমিহীন পরিবারের মাঝে জমি ও গৃহ প্রদান
মহাদেবপুরে মাকে তৈলাক্ত খাবার খাওয়াতে নিষেধ করায় ভাই-ভাতিজার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা! তিন পরিবার বাড়ি ছাড়া

মহাদেবপুরে মাকে তৈলাক্ত খাবার খাওয়াতে নিষেধ করায় ভাই-ভাতিজার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা! তিন পরিবার বাড়ি ছাড়া

নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁর মহাদেবপুরে শয্যাসায়ী বৃদ্ধা মাকে তৈলাক্ত খাবার দিতে নিশেধ করায় ভাই-ভাতিজার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করার অভিযোগ উঠেছে বোনের বিরুদ্ধে। বাদী বোন রেবেকা খাতুনের বাড়ী উপজেলার বাখরাবাদ গ্রামে এবং বিবাদী ভাইদের বাড়ী একই উপজেলার শ্যামপুর গ্রামে।
মামলা সূত্রে জানা যায়, বাদী-বিবাদীর মা বৃদ্ধা রাজিয়া সুলতানা(৮৫) শয্যাসায়ী। মাকে ছেলেরা দেখাশুনা করেন না। প্রতিবেশীদের মাধ্যমে জানার পর বাদী রেবেকা খাতুন তার ছেলে হারুনুর রশীদ পিন্টুকে নিয়ে ঈদ-উল-ফিতরের দিন কিছু খাবার নিয়ে শ্যামপুর গ্রামে মাকে দেখার জন্য যান। মার সাথে দেখা করতে এমনকি সঙ্গে নিয়ে যাওয়া খাবারও খেতে দেওয়া হয়নি। বিষয়টি বাদী স্থানীয় গণ্যমান্যদের জানালে পরদিন সুরাহা করে দেওয়ার আশ্বাস দেয়। কিন্তু পরদিন গণ্যমান্যরা কোন ব্যবস্থা করে না দিলে বাদী তার ছেলেকে নিয়ে বৃদ্ধা মায়ের সঙ্গে আবারও দেখা করতে যান। এতে বাড়ির দরজায় বৃদ্ধার বড় ছেলে রেজাউল হক নান্নু, মেঝ ছেলে মুন্নু ও ছোট ছেলে মঞ্জুরুল হক মঞ্জু এবং রেজাউল হকের ছেলে সাব্বির আহমেদ সাগর মারপিট করে বাদী ও তার ছেলেকে জখম করে। ঘটনায় বাদী তার তিন ভাই ও ভাতিজাসহ সাত জনকে আসামী করে থানায় মামলা করেন।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাদী-বিবাদীর মা বৃদ্ধা রাজিয়া সুলতানা প্রায় ১ বছর থেকে দুই পা ভেঙে শয্যাসায়ী। বিছানায় গোসল, খাওয়া ও প্রকৃতির কাজ করে থাকেন। তিন ছেলে পালা করে তাদের মাকে দেখাশুনা করেন। ডাক্তার তৈলাক্ত খাবার খাওয়াতে নিশেধ করেছেন। বোনের নিয়ে আসা তৈলাক্ত খাবার মাকে না খাওয়ানোর জন্য ভাইয়েরা নিশেধ করে। কিন্তু তারপরও তারা খাবারের জন্য জোর করে। ভাইদের হয়রানী করতেই বোনের এ মিথ্যা মামলা করা হয়েছে।
শয্যাসায়ী বৃদ্ধা রাজিয়া সুলতানা বলেন, আমার তিন ছেলে তারাই সেবা যত্নসহ দেখেশুনা করে। ছেলেরা না থাকলে হয়ত এতোদিন মারা যেতাম। ছেলেদের বিরুদ্ধে মেয়েরা যে অভিযোগ করেছে তা সম্পূর্ন মিথ্যা। নিজের মেয়ে হতে পারে তবে তারা খুবই দুষ্টু ও বদ মেজাজের।
বৃদ্ধার বড় ছেলে রেজাউল হক নান্নু বলেন, ডাক্তার মাকে তৈলাক্ত খাবার খাওয়াতে নিষেধ করেছে। তৈলাক্ত খাবারে মা আরো অসুস্থ হয়ে পড়ে। বোনেরা মাকে দেখে ২/১দিন থাকবে চলে যাবে। কিন্তু তারা তো আর দেখাশুনা করে না। পয়নিষ্কাশন আরো দুর্গন্ধ হয়। যা আমাদেরই পরিষ্কার করতে হয়। এজন্য তাদের নিয়ে আসা তৈলাক্ত খাবার খাওয়াতে আমরা নিষেধ করায় উল্টো আমাদের অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে। আবার আদালতে গিয়ে মিথ্যা মামলা করেছে একারনে আমাদের তিন পরিবারের সবাই এখন বাড়ি ছাড়া।
স্থানীয় প্রতিবেশী সাজ্জাদ হোসেন, আসমা বেগম ও বয়জ্যেষ্ঠ তহমিনা বলেন, ছেলেরা পালা করে তাদের মাকে দেখাশুনা করে থাকে। তবে মেয়েদের কোন ধরনের সেবা করতে দেখা যায়নি। কিছুদিন আগে হঠাৎ করেই মেয়েরা খাবার নিয়ে আসে। খাবার দিতে নিশেধ করায় বোনেরা ঝগড়া শুরু করে।
এ ব্যাপারে বাদী রেবেকা খাতুন ও তার ছেলের রুহুল উভয়ের নাম্বারে ফোন দিলে সাংবাদিকের পরিচয় জানান পর রং নাম্বার বলে ফোন কেটে দিয়ে মোবাইল বন্ধ করে রাখেন।
এ ব্যাপারে মহাদেবপুর থানার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও উপপরিদর্শক (এসআই) জয়দাস বলেন, মামলাটি তদন্তাধীন অবস্থায় আছে। দ্রুত তদন্ত শেষ করে আদালতে চার্জশিট জমা দেয়া হবে।

Comments

comments

Please Share This Post in Your Social Media

© 2018-2021, daynikekusherbani.com- All rights reserved.অত্র সাইটের কোন - নিউজ , ভিডিও ,অডিও , অনুমতি ছাড়া কপি/ অন্য কোথাও ব্যবহার করা দন্ডনীয় অপরাধ।
Design by Raytahost.com