সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৪৪ পূর্বাহ্ন

একুশের বাণী :
দৈনিক একুশের বাণী একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকা , আমরা দীর্ঘ ২০ বছর যাবৎ সুনামের সহিত দেশের প্রত্যেকটি প্রান্ত থেকে মুহুর্তের খবর এনে তুলে ধরি আপনাদের সামনে , বর্তমানে আমরা ২০১৮ থেকে অনলাইন বার্সনেও আছি , আগামী ১০ দিনের মধ্যে ই-পেপারেও চলে আসবো । আমাদের তথ্য দিয়ে সহযোগীতা করুন , সত্য-তা যত গভিরেই থাকুক , জাতির সামনে তুলে আনবো আমরা । আমাদের ইমেইল করতে পারেন এই ঠিকানায়ঃ- dailyekusherbani2013@gmail.com/dailyekusherbani2018@gmail.com ... মোবাইল বার্তা বিভাগঃ- 01635757744 গভ,রেজি নং- ডিএ-২০৩৫। বর্ষ-20
শিরোনাম :
সংবর্ধিত হলেন সন্দ্বীপ ইউপি নির্বাচনে নির্বাচিত ৪ সিবিও সদস্য সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত দুই সদস্যের পরিবারে নগদ অর্থ বিতরণ করেন গাজীপুর কাচামাল আড়ৎদার মালিক গ্রুপ। সাংবাদিক সংগঠনসমুহকে নিবন্ধনের আওতায় আনতে মন্ত্রীপরিষদে আবেদন ‘প্রতি উপজেলায় ফায়ার স্টেশন নির্মাণ শেষ পর্যায়ে’ ‘২৮ সেপ্টেম্বর থেকে ফের টিকা ক্যাম্পেইন’ কেশবপুরে দলিত জনগোষ্ঠীর জীবন-মান উন্নয়নে প্রশিক্ষণ সম্পন্ন শার্শা’য় অনুমতি বিহীন ক্লিনিকে অপারেশন ভিতিকর ছবি পোষ্ট করে ফেসবুকে বিজ্ঞাপন পদ্মা সেতুতে কোন দুর্নীতি হয়নি তা আজ প্রমাণিত: মতিয়া চৌধুরী সাংবাদিক সংগঠনসমুহকে নিবন্ধনের আওতায় আনতে মন্ত্রীপরিষদে আবেদন বাঁশখালীতে ১১হাজার ৫ শত পিস ইয়াবা সহ ২ জন মহিলা ও একজন পুরুষ গ্রেফতার বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্তি ৪র্থ দিনে ক্ষোভে ফুঁসছে গাজীপুরের মানুষ বাঁশখালীতে ১১ হাজার ৫শত পিস ইয়াবা সহ ২ জন মহিলা ও একজন পুরুষ গ্রেফতার ৭০ বছর পর মাকে দেখতে আসছেন হারানো ছেলে! নরসিংদী জেলায় করোনায় গরীব ও অসহায়দের পাশে মজিদ মোল্লা ফাউন্ডেশন গাজীপুরের মেয়রকে আ.লীগ থেকে বহিষ্কারের দাবিতে তৃতীয় দিনে বোর্ডবাজার সহ মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ প্রধানমন্ত্রীর এসডিজি অর্জনে গাজীপুর মেয়রের আনন্দ মিছিল হাটহাজারীতে দেয়াল চাপায় কলেজ ছাত্র নিহত আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেড নোয়াজিষপুর উপশাখা উদ্বোধন ‘আজাদ প্রোডাক্টস’ ফুটপাত থেকে শিল্পপতি হয়ে ওঠা সংগ্রামী জীবনের গল্প! সাতক্ষীরায় বিশ্ব ব্যক্তিগত গাড়ী মুক্ত দিবস উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত
তিন পুরুষের স্বাক্ষী বহন করে চলা ৪৮ বছরের একটি মুজিব কোট

তিন পুরুষের স্বাক্ষী বহন করে চলা ৪৮ বছরের একটি মুজিব কোট

রেজেওয়ানুল ইসলাম বাপ্পি ::
কিছু ভালবাসা আর আবেগ নষ্ট হয়না কোনদিন রয়ে যায় হৃদয়ের মণিকোঠায় আজীবন। তেমনি একটি মুজিব কোটের গল্প যার বয়স দীর্ঘ চার যুগ অথ্যাৎ ৪৮ বছর।
স্থানীয় আওয়ামীলীগের রাজনীতির বহু ঘটনার স্বাক্ষী বহন করে এই কালো রঙের পুরাতন মুজিব কোটটা ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ১০ নং হরিশংকরপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি বাবর আলী বিশ্বাসের জীবনে।
তার বাবা বীর মুক্তিযোদ্ধা মহররম বিশ্বাস বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কে ভালবেসে ১৯৭২ সালে ছয় দফার স্বাক্ষী হিসাবে ছয়টি বোতাম দিয়ে কালো রঙের একটি মুজিব কোট তৈরি করেছিলেন।
বাবর আলী বিশ্বাসের বাবার তৈরি করা মুজিব কোটের বয়স মেঘে মেঘে বেলা বেড়ে আজ আটচল্লিশ বছরে এসে দাড়িয়েছে। এতো পুরাতন একটি মুজিব কোট এতো দীর্ঘ বছর বহন করার ঘটনা সত্যিই বিরল বলে মনে হয়। বঙ্গবন্ধুকে ভালবেসে তার বাবার মূত্যুর পর সেই স্মৃতি ধরে রাখার জন্য মুজিব কোটটি ছেলে বাবর আলী বিশ্বাস তিনিও আজ দীর্ঘ ২৩ বছর গায়ে জড়িয়ে রেখেছেন।
মুজিব কোটের রং একটু পুরাতন হলেও তার মনের কাছে আজীবন রঙিন হয়ে আছে বাবার রেখে যাওয়া ৪৮ বছরের পুরাতন মুজিব কোটটা। মহরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহররম বিশ্বাসের বাড়ি ঝিনাইদহ সদর উপজেলার হরিশংকরপুর ইউনিয়নে কোদালিয়া গ্রামে।
তিনি ১৯৭১ সাল থেকে টানা ১৯৯৪ সাল পযন্ত ইউনিয়নের সভাপতি হিসাবে দ্যায়িক্ত পালন করেছেন। বাবর আলী বিশ্বাসের বাবা একজন বঙ্গবন্ধু মুজিব পাগল মানুষ ছিলেন। তিনি বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কে ভালবেসে সব সময় রাজনৈতিক,সামাজিক অনুষ্ঠানে মুজিব কোট গাঁয়ে পরতেন।
তার বাবা ১৯৯৪ সালে বয়সের ভারে ও শারিরীক অসুস্থতার করণে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের পদ থেকে অবসর নেন। বাবা দল থেকে অবসর নেবার পর বাবর আলী বিশ্বাস ১৯৯৪ সাল থেকে বর্তমান সময় পযন্ত ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন।
তিনি দলের দ্যায়িক্ত নেবার পরে দলের অতি দুঃসময়ে বাবার দেওয়া মুজিব কোট গাঁয়ে দিয়ে ইউনিয়নের সমস্ত নেতাকর্মীদের সংগঠিত করেছেন। অনেক লড়াই সংগ্রাম করেছেন দলের জন্য হরিশংকরপুর ইউনিয়নে জামায়াত, বিএনপির বিরুদ্ধে।
নির্বাচনের সময় বাই সাইকেল চালিয়ে বিভিন্ন ওয়ার্ডে দলের জন্য নৌকার ভোটের জন্য নিবেদিত ভাবে কাজ করে চলেছেন নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে। আওয়ামীলীগ বিরোধী অনেকেই তার এই মুজিব কোট গায়ে দেখে উপহাস করতো হাসাহাসি করতো।বাবর আলী বিশ্বাসও তার বাবার মতো সব সময় আওয়ামীলীগের কর্মীকে নিজের সন্তান ও আপন ভাইয়ের মতো ভালবাসেন।
তিনি বাবার রেখে যাওয়া মুজিব কোটের গল্প বলতে গিয়ে ঝিনাইদহ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ানুল ইসলাম বাপ্পির কাছে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন।
তিনি বলেন আমার বাবা দেশের জন্য বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে মুক্তিযুদ্ধ করেছেন। স্বাধীন দেশে বাবা গ্রামে এসে আমাকে বুকে জড়িয়ে ধরেন তখন আমি তেরো বছর বয়সের ছোট্র কিশোর। আমার আব্বা কে দেখেছি ধান বিক্রয় করে কালো রঙের একটি মুজিব কোট বানিয়ে আনতে। আব্বার বানিয়ে আনা মুজিব কোট দেখে আমাদের বাড়ির সবাই মহা খুশি হোন।
তিনি বলেন আমার মা আওয়ামীলীগের মিছিল,মিটিং ও অনুষ্ঠানে হলে বাবাকে সব সময় মুজিব কোট গায়ে পরিয়ে দিতেন। আমরা ভাই বোনেরা আব্বার মুজিব কোট পরা দেখে তাকিয়ে তাকিয়ে দেখতেন ও খুব খুশি হতেন। আমি কলেজ জীবনে মাঝে মাঝে আব্বার বানানো মুজিব কোটটা পরতাম আব্বা একদিন দেখে বলেন বাবু তুমি মুজিব কোট পরেছো ভালো তবে আমার নেতা শেখ মুজিবের সম্মান রাখবে। মুজিব কোট পরতে হলে মানুষ কে ভালবাসতে হয় তার আদর্শ বুকে ধারণ করে চলতে হয়। তুমি যদি এগুলো মেনে চলতে পারো তাহলে এই পোশাক পরবে আর যদি না পারো তাহলে তুমি মুজিব কোট পরবে না বুঝতে পারলে।
তিনি বলেন আমি আব্বার সেই কথা আজও মেনে চলার চেষ্টাকরি তবে কতটুকু সেই পথে চলতে পারি সেটা মানুষ জানে। বাবার রেখে যাওয়া মুজিব কোট আমার জীবনের থেকে বেশি যত্ন করে রাখি এটা আমার কাছে সব সময় নতুনই মনে হয় এটা আমি মূত্যুর আগে আমার ছেলেকে দিয়ে যেতে চাই। আব্বা অসুস্থ হবার পর ১৯৯৪ সালে আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসাবে নেতারা আমাকে দ্যায়িক্ত দেন। আমি নেতা হবার পরে আওয়ামীলীগের প্রথম মিটিংয়ে আমার বাবা আমাকে নিজে হাতে এই মুজিব কোট গায়ে পরিয়ে দেন।
জানা যায় তারই ধারাবাহিকতায় বাবর আলী বিশ্বাস বঙ্গবন্ধু কে ভালবেসে আজও বাবার রেখে যাওয়া স্মৃতি বহন করে চলেছে। শীত কিংবা গরম যে সময়ই হোক না কেন আওয়ামীলীগের সমস্ত মিটিংয়ে তিনি মুজিব কোট গাঁয়ে দেন। বাবর আলী বিশ্বাসের বঙ্গবন্ধু প্রতি মন থেকে এমন প্রেম এমন আদর্শ দেখে তরুণ প্রজন্মের আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীর অনেক কিছু শেখার আছে বলে মনে করেন অনেকেই।
তিনি জীবনে কখন দলের সাথে বেইমানি করেননি সব সময় নৌকার পক্ষে ভোট করেছেন। বঙ্গবন্ধু আদর্শ বুকে নিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ব মেনে এখনও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সমস্ত নেতাকর্মী কে তিনি আগলে রেখেছেন ষাট বছর বয়সী প্রবীণ এই আওয়ামীলগ নেতা। তার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করি। সারা দেশে এরকম বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে নিয়ে চলা এমন মানুষ বহু জায়গায় নিরবে,নিভৃতে পড়ে আছে। স্যালুট জানাই সেই সমস্ত বঙ্গবন্ধু মুজিব ভক্তদের।

Comments

comments

Please Share This Post in Your Social Media

© 2018-2021, daynikekusherbani.com- All rights reserved.অত্র সাইটের কোন - নিউজ , ভিডিও ,অডিও , অনুমতি ছাড়া কপি/ অন্য কোথাও ব্যবহার করা দন্ডনীয় অপরাধ।
Design by Raytahost.com