শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ০৭:৪২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
গাজীপুরে পূ’র্ব শত্রুতার জেরে সাংবাদিকের গাছপালা কেটে ক্ষতি’সাধন  গাজীপুরে ম’দ পানে দুই সন্তানের জননীর মৃ’ত্যু  পারিবারিক অনুষ্ঠানে ম‘দ্য’পা’নে অ’সু’স্থ হয়ে প্রা’ণ গে’ল নারীর কুষ্টিয়ায় সাংবা’দিক রিজু’র উপ’র সন্ত্রা’সী হাম’লা উ’ন্নত চিকিৎসা’র জন্য ঢাকায় প্রে’রন সামাজিক সিদ্ধান্ত ভ’ঙ্গ করে মাঠের বাহিরে প’শু জ’বা’ই, ইমাম বিতর্ক সামাজিক সিদ্ধা’ন্ত ভ’ঙ্গ করে মাঠের বাহিরে প’শু জবা’ই: ইমাম বিত’র্ক একে একে সবার থলের বিড়াল বেরিয়ে আসছে-মির্জা ফখরুল  বেনাপোলে অন’লাইন প্রতা’রক চ’ক্রে’র ২ সদস্য আটক ঈদের দিন পেরিয়ে ভোরের আলো ফোটার আগেই গাজায় হামলা শুরু করেছে ইসরাইলি বাহিনী গাজীপুরে নারী পোশাক শ্র’মিক হত্যা’র ঘটনা’য় দুজন গ্রে’প্তার গত ২০ বছরে সারা দেশে কারা ও পুলিশ হেফাজতে মৃত্যুর সংখ্যা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট রাত পোহালেই বাঁশখালী-সাতকানিয়া সহ দক্ষিণ চট্টগ্রামের অর্ধলক্ষাধিক মানুষের ঈদ উদযাপন সড়কে আইন অমান্য’কারিদের বিরু’দ্ধে ব্য’বস্থা নেয়া হবে গাজীপু’রে পুলিশ’প্রধান “মামুন” চট্টগ্রাম নগরীতে কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা দিয়েছে অসহায় নারী পুরুষ ও শিশু কল্যাণ ফাউন্ডেশন ঝুঁ’কিপূর্ণ ও অনিরা’পদ যাত্রায় সামিল না হওয়ার আহ্বানঃ গাজীপুরে হাই’ওয়ে পুলিশ’প্রধান রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছাপত্র পাঠিয়েছেন সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা বিএনপির চারটি, যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটি ও ছাত্রদলের ঢাকা মহানগরের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা কুয়েতে শ্রমিক আবাসন ভবনে আগুন, নিহত ৪৯ : নিহতরা সবাই ভারতীয় নাগরিক গাজীপুরে বনে’র ১২ হাজার একর জমি বে’দখল গড়ে উঠে’ছে প্র’তিষ্ঠানে’র কারখা’না দৃ’ষ্টিনন্দন রি’সোর্ট বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় এসি বিস্ফোরণে দগ্ধ শিশুর মৃত্যু

ঝিনাইদহ ঘোড়শালে নির্বাচনী সহিংসতায় বাড়িছাড়া বহু কৃষক পরিবার

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৩ মার্চ, ২০২২, ১১.২৯ অপরাহ্ণ
  • ২৬৩ জন দেখেছে

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি-

ঝিনাইদহ সদর উপজেলায় ইউপি নির্বাচন অনুষ্টিত হয়েছে ২০২১ সালের ২৬ ডিসেম্বর। কিন্তু নির্বাচনকালীন সহিংসতা আজও শেষ হয়নি ঘোড়শাল ইউনিয়নে। নির্বাচনের এক বছর আগে হওয়া মার্ডার মামলা মিটিয়ে ফেলতে চাপ দিচ্ছে বাদি ও বাদির সামাজিক দলের লোকদের। তাদের ভয়ে বাড়ি ছাড়া মামলার বাদিসহ অন্যান্যরা। জানাগেছে,  নির্বাচনে দলের কাছে মনোনয়ন চেয়েছিলেন সিদ্দিকুর রহমান খান। মনোনয়ন না পেয়ে ভোটে অংশগ্রহণ করেননি তিনি। কিন্তু প্রার্থী হয়েছিলেন সেই কারণে সিদ্দিকের সাথে দল করা ইউনিয়নের পাঁকা ও কুশবাড়িয়া গ্রামের ২৫-৩০ পরিবার আজও বাড়ি ছাড়া। নির্বাচনে মাসুদ পারভেজ লিল্টন আবার চেয়ারম্যান হওয়ায় তার সমর্থকরা এই নির্যাতন শুরু করেছে এমন অভিযোগ করেছেন এই দুই গ্রামের ভুক্তভোগী অনেকে। সরেজমিনে যেয়ে দেখা যায় পাঁকা গ্রামের আজিজ,জাহিদ,সিদ্দিক,আকবর ও সাব্দারসহ বেশ কয়েকটি পরিবার তাদের চাষের জমিতে আবাদ করতে পারছে না। ভয়ে এলাকায় স্বাধীনভাবে চলাফেরা করতে পারছে না। জানাগেছে,পাঁকা গ্রামের আজিজের বাড়িতে হামলা চালানো হয়েছিল নির্বাচনের পরেই। আজিজের এক ছেলে চাকরির সুবাদে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ঝিনাইদহ শহরে থাকেন, গ্রামের বাড়িতে প্রবাসী ছেলের বউকে নিয়ে আজিজের স্ত্রী সালেহা খাতুন থাকতেন। বাড়িতে হামলার পরে ছোট ছেলের বউ আর বাড়িতে থাকতে পারছে না ভয়ে। এখন একাই বাড়ি পাহারা দিচ্ছেন সালেহা। সালেহা খাতুন জানান,“ আপনারা আমাদের কাছে জিজ্ঞাসা করছেন এই কারণেই হয়তো আবার হামলা করতে পারে। ইজ্জতের ভয়ে আমার বউমা বাড়িতে থাকতে পারছে না। আমাদের প্রায় ১১ বিঘা জমি অনাবাদি পড়ে রয়েছে।”  সরেজমিনে দেখা যায়, পাশের জমিতে সবুজ ধান বাতাশে দোল খাচ্ছে কিন্তু আজিজের জমিতে ঘাসের বন। একই রকমভাবে গ্রামের মাঠে সিদ্দিক,জাহিদ,আকবর এবং সাব্দারসহ অনেকেই সামাজিক দলাদলির শিকার হয়ে বাড়িতে টিকতে পারছে না। আবাদ করতে পারছেনা জমিতে।  প্রতিবেশি মজিদের স্ত্রী জাহানারা জানান, হামলার খবর শুনে আমরা এসিেছলাম। কিন্তু ভয়ে আমরা পাশে দাঁড়াতে পারিনি। খবরের কাগজে আবার আমাদের নাম লিখে দিয়েন না। তাহলে আবার আমাদের উপরেও হামলা হতে পারে।” কিন্তু অনাবাদি জমির পাশ থেকেই আমিরুল ইসলামের স্ত্রী সাথী খাতুন,মশিউর রহমানের স্ত্রী সেফালী খাতুন বলেন,“এই গ্রামে ইমরান মার্ডারের পরে এই গ্রামের এক দল লোক হোসন মন্ডল,বাতেন মেম্বার,মশিয়ারসহ এই গ্রামের অনেকের জমিতে আবাদ করতে দেয়নি। তাই এখন এদের জমিতে চাষ করতে দেচ্ছে না। তাদেরকে কেউ না মারলেও নিজেরায় ভয়ে আসতে পারছে না।” পাঁকা গ্রামের হোসেন আলীর ছেলে জিয়াউর রহমান বলেন,“ আমার এক ভাই ইমরান মার্ডারে আসামি ছিল। মামলা হওয়ার পরে আমার শ্যালো মেশিনের পার্টস চুরি করে নিয়ে যায়। বরিংয়ের মধ্যে ইট-পাথর ঢুকিয়ে নষ্ট করে দেয়। কিন্তু আমরা কিছুই করিনি। তারা এখন ভয়েই আসছে না।” সিদ্দিকুর রহমান জানান, “এই গ্রামে আমার বাবার ১০০ বিঘা জমি। আমি হয়তো একটা সমাজের সাথে মিশি। এক বছর আগে গ্রামে ইমরান নামে এক যুবক মার্ডার হয়। মার্ডারের পরে জড়িতদের নামে মামলা করে পরিবার। সেসময়ে আসামি পরিবারের অনেকেই পুলিশের ভয়ে বাড়িছাড়া ছিল, তবে পুলিশ ও আমরা গ্রামে একাধিকবার মিটিং করে শান্তি প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করেছি। ভোটে আমি মনোনয়ন চেয়েছিলাম,নির্বাচনের আগে প্রচারণাও করেছি এলাকায়। যার ফলশ্রæতিতে এখন আমাদের জমিতে প্রতিহিংসামূলকভাবে চাষ করতে দেওয়া হচ্ছে না। আমাদের জমি যারা বর্গা করে তাদের কেউ চাষ করতে দেওয়া হচ্ছে না। ইমরান মার্ডারের চার্জশিটভুক্ত আসামি আব্দুর রশিদের নেতৃত্বে জিয়া,আমিরুল,ইমামুল,তাহাব্বিনসহ বেশ কিছু লোক দলবেধে আমাদের জমিতে সেচ দিতে দেয়নি,ধানের চাষ করতে দেয়নি।” এব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান পারভেজ মাসুদ লিল্টন বলেন, “ইমরান মার্ডারের পরে ইমরানের বাবা-সহ ঐ গ্রæপের লোকজন আসামিদের বাড়িতে লুটপাট করে,গরু খুলে নিয়ে যায়,শ্যালো মেশিন চুরি করে নিয়ে যায়। সেই সময়ের ভুক্তভোগী লোকেরা এখন এমন করতে পারে। আমার জানামতে বাদি পক্ষকে কেই বাধা দিচ্ছে না তবে তারা নিজেরাই ভয়ে চাষ করছে না। যাদের বাড়িতে লুটপাট হয়েছিল তারা কেন মামলা করেনি জানতে চাইলে তিনি বলেন, সেই সময়ে থানা মামলা নেয়নি। ওসির সাথে কথা হয়েছে, দ্রুতই এসপি অফিসে অভিযোগ দেবে ভুক্তভোগীরা।” তবে গ্রামের অনেকেই জানিয়েছেন, মূলত ইমরান মার্ডার মামলাটি মিটিয়ে ফেলার জন্য তাদের বাড়িতে থাকতে দিচ্ছে না আসামিরা। বাদি পক্ষ যাতে ভয়ে মামলাটি মিটিয়ে ফেলে সেই কারণে এই নির্যাতন করা হচ্ছে। নির্যতনকারিরা ইউপি চেয়ারম্যানের কাছের লোক হওয়ায় আইনি সহয়তাও পাচ্ছে না বাড়িছাড়া ভুক্তভোগী পরিবারগুলি। গ্রামের লোকজনের কাছে খোঁজ নিয়ে জানাযায় আসামিদের বাড়িতে লুটপাটের তেমন সত্যতা পাওয়া যায়নি।

Comments

comments

Please Share This Post in Your Social Media

এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ
Close
© 2018-2022, daynikekusherbani.com- All rights reserved.অত্র সাইটের কোন - নিউজ , ভিডিও ,অডিও , অনুমতি ছাড়া কপি/ অন্য কোথাও ব্যবহার করা দন্ডনীয় অপরাধ।
Design by Raytahost.com
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com